মেহেরপুরে উন্নত জাতের শিম চাষে লাভবান কৃষক



চলতি মৌসুমের অন্যতম প্রধান সবজি শিমে ভরে উঠেছে মেহেরপুরের মাঠ। মেহেরপুর-চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর-কুষ্টিয়া, মেহেরপুর-মুজিবনগর সড়কসহ বিভিন্ন রাস্তার পাশের মাঠে এখন শুধু শিম আর শিম। গত বছরের তুলনায় এখানে এবার চাষ কিছুটা কম হলেও ফলন বাম্পার হওয়ায় কৃষকদের মুখে হাসি ফুটেছে। মেহেরপুর কৃষি বিভাগের উপপরিচালক শ্রী চৈতন্য কুমার জানান, এবার মেহেরপুর জেলায় ২৯০ হেক্টর জমিতে শিমের চাষ হয়েছে। পরিমাণে গত বছরের চেয়ে কিছুটা কম হলেও এবারের আবহাওয়া সবজি চাষের জন্য অনুক‚ল হওয়ায় শিম চাষিরা লাভবান হবেন। আবাদকৃত এ শিমের সবই রহিম ও রূপবান নামের উচ্চ ফলনশীল আগাম জাতের। রহিম ও রূপবান শিমের আকার, ওজন, দাম, স্বাদ, ফলন সবই একরকম। পার্থক্য শুধু রঙের। রূপবান শিম দেখতে লালচে এবং রহিম শিম দেখতে সাদা। কৃষি বিভাগ জানায়, এ বছর মেহেরপুরে ২ লাখ টন সবজি উৎপাদন হবে। যার মধ্যে শিম উৎপাদন হবে সবচেয়ে বেশি। লাভের দিক থেকেও শিম শীর্ষে। এ সবজি চাষ আরো লাভজনক পর্যায়ে নিতে কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ দ্বিতীয় শস্য বহুমুখীকরণ প্রকল্পের আওতায় শিম চাষে কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করছে। মেহেরপুর সদর উপজেলার আমঝুপি গ্রামের শিম চাষি আতিকুর রহমান জানান, এক বিঘা জমিতে শিম চাষে তার খরচ হয়েছে প্রায় ৩০ হাজার টাকা। মাঘ মাস পর্যন্ত পুরো মৌসুমে ৩ হাজার কেজি শিম বিক্রি করতে পারবেন বলে তিনি আশা করছেন। প্রতি কেজি শিম ২০-৪০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হবে। খরচ বাদে প্রতি বিঘা জমিতে ৩০-৩৫ হাজার টাকা লাভ হবে। কিন্তু দেশি শিম যেমন ঘি-কাঞ্চন, হাতিকানি, বানতোড়া, কাকিলা, পুটল ইত্যাদি শিমের চাষ করে এ লাভটা পাওয়া যেত না বলেও তিনি উল্লেখ করেন। ঝাউবাড়িয়া গ্রামের বেশ কয়েকজন শিম চাষি জানান, শিম চাষ এখন ধান-পাটের চেয়ে লাভজনক। তাই কৃষকরা শিম চাষে ঝুঁকছেন।

গাংনী উপজেলার বামুন্দি গ্রামের শিম চাষি হবিবর রহমান জানান, প্রযুক্তি জ্ঞানের অভাবে প্রথমদিকে কিছু কৃষক রূপবান শিমের চাষ করে ঘাটতির মুখে পড়েন। এ শিম চাষে কিছু বাড়তি প্রযুক্তি প্রয়োগ করতে হয়। যা কৃষি বিভাগ তাদের কর্মশালায় এবং হাতে-কলমে দেখিয়েছেন। সে জ্ঞান নিয়ে এবার শিম চাষ করায় তিনি লাভবান হবেন। কারণ এবার গাছে গাছে থোকায় থোকায় শিম আর শিম। জানা গেছে, পরাগায়নের পর সৃষ্ট ক্ষুদ্র শিম ফুল দিয়ে আবৃত থাকে।

এ ফুল সরিয়ে (স্থানীয় ভাষায় ডেলিভারি) না দিলে সেটি পূর্ণাঙ্গ শিমে পরিণত হতে পারে না। আবার বৃষ্টির পানিতে অথবা শিশিরে এ ফুল ভিজে গিয়ে শিমটায় পচন ধরিয়ে দিতে পারে। তাই এ ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হয়। রূপবান শিম চাষে এমনটি হলেও রহিম শিম চাষে এ ধরনের কোনো ঝামেলা নেই  ।



Share this:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

 
Copyright © মেহেরপুর ২৪. Designed by OddThemes